তিস্তা ব্যারেজের সব গেট খুলে দিলো ভারত!সীমান্তের আশেপাশের গ্রাম গুলোতে বন্যা।

বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তবর্তী নদীগুলোর পানি অস্বাভাবিক হারে বাড়তে শুরু করায় হলুদ সর্তকতা সংকেত জারি করা হয়েছে। অতিরিক্ত চাপ কমাতে অন্তত ৬০টি জলকপাট খুলে দিয়েছে ভারত।পশ্চিমবঙ্গ সেচ বিভাগ বলছে, সিকিম, পশ্চিমবঙ্গ ও ভুটানে ভারি বৃষ্টির কারণে গজলডোবা তিস্তা ব্যারেজে পানির পরিমাণ বেড়ে গেছে।

এ কারণে খুলে দেয়া হয়েছে ৪৪টি গেইটের সবগুলো। বুধবারও পানি ছাড়ার পরিমাণ ছিলো ১,৪৫০ কিউসেক। যেটা বাংলাদেশের উপকুলীয় অঞ্চলের জন্য মোটেও সুখকর নয়। এতে করে বাংলাদেশের অনেক গুলো অঞ্চলে সৃষ্টি হয়েছে বন্যা।

এছাড়া ফারাক্কার ৮টি স্লুইসগেইট খোলার কথা জানিয়েছে প্রশাসন। অতিরিক্ত পানির চাপ বেড়ে যাওয়ায়, ঝাড়খন্ডের তিলপাড়া ব্যারেজের ৫টি গেইট খুলে দেয়া হয়েছে। এছাড়া বিহারের সাথে পশ্চিমবঙ্গের লাগোয়া দামোদর ব্যারেজের ৩টি গেইট খুলে দিয়েছে সেখানকার প্রশাসন।যেভাবে বৃষ্টি হচ্ছে, তাতে তিস্তার পানি আরো বাড়বে এমন সতর্কতা জারি করা হয়েছে। শঙ্কায় পড়েছেন উপকূলীয় অঞ্চলের মানুষ। তলিয়ে যেতে পারে বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী নীচু গ্রামগুলো। এরই মধ্যে পানি ঢুকতে শুরু করেছে বিভিন্ন এলাকায়।

এ অবস্থায় সরকারী ভাবে কোন ব্যবস্থা না গ্রহন করলে তুমুল ক্ষয়ক্ষতির আসংখ্যা করা হচ্ছে। ইতিমধ্যেই জরুরী সতর্কতা জারী করা হয়েছে প্লাবিত অঞ্চল গুলোতে। তবে বাংলাদেশের মানুষ এর একটা সঠিক ও নির্ভরযোগ্য সমাধান চাই।

Leave a Reply